রবিবার,২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৮ই জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী

 
 

সরকার জনগণের স্বার্থরক্ষা না করে লুটেরার স্বার্থরক্ষায় ব্যস্ত : আনু মুহাম্মদ

 

তেল গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেছেন, সরকার জনগণের স্বার্থরক্ষা না করে দেশি-বিদেশি লুটেরা গোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষায় ব্যস্ত। ‘দেশ-বিদেশের সকল তথ্য গবেষণা ও প্রবল জনমত সত্ত্বেও সরকার এখনও সুন্দরবনবিনাশী রামপাল প্রকল্প নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। এদিকে জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে আগামী ৯ মার্চ খুলনায় উপকূলীয় কনভেনশন করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয় কমিটি আয়োজিত সমাবেশে তিনি একথা বলেন। এর পাশাপাশি নতুন এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন। এতে আরো বক্তব্য রাখেন রুহিন হোসেন প্রিন্স, মোশরেফা মিশু।

এসময় বজলুর রশীদ ফিরোজ, সাইফুল হক, মোশাররফ হোসেন নান্নু, আজিজুর রহমান, আহসান হাবিব লাভলু, আবুল হাসান রুবেল, ফখরুদ্দিন কবির আতিক, আকবর খান, শামসুজ্জোহা, নাসিরউদ্দিন নসু, মাহিন উদ্দিন চৌধুরী লিটন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শিল্প ও কৃষিসহ সব ঘরে সুলভে পরিবেশবান্ধব বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য জাতীয় কমিটির বিকল্প প্রস্তাবনা তুলে ধরে তিনি বলেন, সরকারের ব্যয় বহুল-ঋণনির্ভর-পরিবেশধ্বংসী বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনার বিপরীতে এই প্রস্তাবনা হাজির করেছে। সরকার জনস্বার্থের পক্ষে হলে অবিলম্বে এই প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শুরু করবেন, এটি আমাদের প্রত্যাশা।

তিনি বলেন, দুর্নীতিবাজ খুজতে বেশি দূরে যেতে হবে না, সুন্দরবন এবং তার আশপাশে যারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলে দখলদারিত্ব কায়েম করে সুন্দরবনকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে, তাদেরকে ধরলেই অনেক দুর্নীতিবাজ বেড়িয়ে পড়বে। সরকার পরিবেশ রক্ষার কথা বললেও সুন্দরবনের পাশে অনেক প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দিয়ে সুন্দরবনকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, সুন্দরবন ধ্বংস করে, দেশের মানুষের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে কোনো উন্নয়ন হতে পারে না। যে উন্নয়ন মানুষের কল্যাণের বিপরীতে প্রাণ-প্রকৃতি ধ্বংস করে তা রক্ষায় জনগণকেই এগিয়ে আসতে হবে। তিনি অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে জনগণের কণ্ঠকে সোচ্চার করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আগামী ৯ মার্চ খুলনায় উপকূলীয় কনভেনশন থেকে জাতীয় সম্পদ রক্ষায় আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, সরকার জনমত উপেক্ষা করে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম বাড়িয়ে জনগণের পকেট কাটছে। এখনই প্রতিরোধ না করতে পারলে আগামীতে দাম আরো বাড়বে। সরকার জনস্বার্থ রক্ষার থেকে ব্যবসায়ী ও কমিশনভোগীদের স্বার্থরকআয় ব্যস্ত। তিনি রাষ্ট্রায়ত্ব বিদ্যুৎ খাত রক্ষা করে কম মূল্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ ও সমুদ্রের গ্যাসের উপর শতভাগ মালিকানা নিশ্চিত করে নিজিদের স্বক্ষমতা বাড়িয়ে গ্যাস উত্তোলনের প্রক্রিয়া শুরু করার আহ্বান জানান।

মোশরেফা মিশু বলেন, আমরা দীর্ঘদিন আন্দোলন করলেও, জনমত পক্ষে থাকলেও শাসকগোষ্ঠী কাউকে তোয়াক্কা করছে না। অতীতে যেসব শাসকরা জনমতকে উপেক্ষা করেছে তাদের পরিণতি সুখকর হয়নি। তিনি গ্যাস-বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানে জাতীয় কমিটির সাত দফা বাস্তবায়নের দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেস ক্লাব তোপখানা হয়ে পল্টন মোড়ে এসে শেষ হয়। দেশব্যাপী এসব দাবিতে আজ সভা-সমাবেশ বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

আজকে

  • ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
  • ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং
  • ৮ই জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

 

Express News

 
 
 
প্রধান সম্পাদকঃ এম এ জাহান। চেয়ারম্যানঃ ছিদ্দিকুর রহমান।
উপদেষ্টাঃ আঃ বাছিদ আছিদ। পরিচালনায়ঃ আবুবকর ছিদ্দিক।
পৃষ্ঠপোষকঃ আঃ জলিল ভূইয়া।
সিনিয়র রিপোর্টারঃ মোঃ জিয়াউর রহমান,মোঃ ইউছুপ মনির ,মোঃ হারুনুর রশিদ,রাসেল আহাম্মেদ,এ এস হিরু,মোঃ শুকুর আলী,এস আর সাইফুল।