বৃহস্পতিবার,১৯শে জুলাই, ২০১৮ ইং, ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী

 
 

নরমাল পিজি-সিএমএইচে খালেদার চিকিৎসা অসম্ভব: ফখরুল

 

দেশের অন্যতম প্রধান হাসপাতাল বঙ্গবন্ধু মেডিকেল আর সেনা পরিবারের চিকিৎসার জন্য স্থাপন করা সিএমএইচ একেবারেই সাধারণ মানের হাসপাতাল বলে মনে করেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার দাবি, এই দুই হাসপাতালে বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সম্ভব নয়।

বিএনপি মহাসচিব এই দুই হাসপাতালের চেয়ে বেসরকারি ইউনাইটেডকে উন্নত হাসপাতাল মনে করছেন এবং সেখানেই তার নেত্রীকে অবিলম্বে স্থানান্তরের দাবি জানিয়েছেন।

ঈদুল ফিতরের পরদিন রবিবার নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করছিলেন বিএনপি নেতা। দলীয় চেয়ারপারসনের শারীরিক অবস্থা জানিয়ে ইউনাইটেডে নেয়ার দাবি জানাতেই সাংবাদিকদেরকে ডাকেন তিনি।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে বন্দী সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে গত ৭ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য আনা হয়। গত ১০ জুন তাকে আবারও এই হাসপাতালে আনার প্রক্রিয়া শুরু হয়। কিন্তু এবার বেঁকে বসেছেন খালেদা জিয়া। জানিয়েছেন এই হাসপাতালে তিনি আসবেন না।

তিন দিন চেষ্টার পরও অনঢ় বিএনপি প্রধানকে বাগে আনতে না পেরে বিকল্প প্রস্তাব দেয়। তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়ার কথা বলে সরকার। কিন্তু সেখানেও যাবেন না তিনি-জানিয়ে গিয়েছেন কারা কর্তৃপক্ষকে।

ঈদের আগের দিন বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদেরকে এই তথ্য জানিয়েছেন। কিন্তু বিএনপির পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কিছু জানানো হয়নি। আজ সেটিই জানালেন ফখরুল।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল এবং সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালকে একেবারেই সাধারণ মানের দাবি করে খালেদা জিয়ার শারীরিক সমস্যার জটিলতা তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নরমাল কোন হাসপাতালে তার চিকিৎসা করা সম্ভব নয়। এটা স্পেশালাইজড ভাবেই করতে হবে, কিন্তু সরকার তাতে রাজি হচ্ছে না।’

বিএনপি প্রধানের শারীরিক সমস্যার জটিলতা তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ‘তার ঘাড়ের ব্যাথা, কোমরের ব্যাথা বা পায়ের তলা পর্যন্ত বিস্তৃত এটা খুব মারাত্মক। ওনার দুই হাঁটু প্রতিস্থাপন করা।’

খালেদা জিয়ার শারিরীক অবস্থা আগের চেয়ে অনেক খারাপ হয়েছে দাবি করে ফখরুল বলেন, ‘ব্যক্তিগত কাজ করার জন্যও তার সাহায্যের প্রয়োজন হচ্ছে।’

ঈদের দিন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গিয়ে স্বজনরা এটা দেখেছেন বলেও দাবি করেন বিএনপি মহাসচিব।

ফখরুল বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য অচিরেই হাসপাতালে শিফট করতে হবে। তার আস্থা আছে ইউনাইটেড হাসপাতালে, সেখানেই তাকে শিফট করতে হবে।’

এক প্রশ্নে ফখরুল বলেন, ‘সরকার জনগণকে বিভ্রান্ত করার জন্য বলছে পিজিতে (বঙ্গবন্ধু মেডিকেলকে সাবেক পিজি হাসপাতাল বলে উল্লেখ করেন বিএনপি নেতারা) নেবে, সিএমইচ-এ নেবেন। আমরা এই দেশের জনগণ, আমাদের সিএমইচ এর অভিজ্ঞতাও আছে পিজিরও আছে।’

বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসার করা না করায় রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গী রয়েছে বলেও দাবি করেন বিএনপি নেতা। বলেন, ‘আমাকে তিনবার কাশিমপুর থেকে পাঠিয়েছে, তিনবারই আমাকে ভর্তি নেয় নাই। এর পরে হাইকোর্টে রিট করে আমাকে ভর্তি হতে হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, খালেদা জিয়ার কিছু হলে এর দায় সম্পূর্ণ সরকারকে নিতে হবে। কারণ এই সরকারের জেল কাস্টডিতে তিনি আছেন।

বিএনপি প্রধান কোনো সাধারণ মানুষ নন জানিয়ে ফখরুল বলেন, তিনি কোনো নির্বাচনে হারেননি, তিন বারের প্রধানমন্ত্রীও ছিলেন। তার সঙ্গে যে আচরণ করা হচ্ছে, সেটি কোনো সভ্য সমাজের হতে পারে না।

সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার মুক্তিও দাবি করা হয়। নইলে আন্দোলন করে তাকে কারাগার থেকে বের করে আনার কথাও বলেন ফখরুল।

আজকে

  • ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
  • ১৯শে জুলাই, ২০১৮ ইং
  • ৬ই জিলক্বদ, ১৪৩৯ হিজরী
 

সোশ্যাল নেটওয়ার্ক

 

Express News

 
 
 
প্রধান সম্পাদকঃ এম এ জাহান। চেয়ারম্যানঃ ছিদ্দিকুর রহমান।
উপদেষ্টাঃ আঃ বাছিদ আছিদ। পরিচালনায়ঃ আবুবকর ছিদ্দিক।
পৃষ্ঠপোষকঃ আঃ জলিল ভূইয়া।
সিনিয়র রিপোর্টারঃ মোঃ জিয়াউর রহমান,মোঃ ইউছুপ মনির ,মোঃ হারুনুর রশিদ,রাসেল আহাম্মেদ,এ এস হিরু,মোঃ শুকুর আলী,এস আর সাইফুল।